যে খাবার গুলা কিডনি রোগীরা খাবেন না



সময়ের সাথে সাথে আমাদের মাঝে কিডনি রোগীর পরিমান অনেক বেঁড়ে যাচ্ছে। এর কারন আমাদের সাদামাটা জীবনযাপন ও খাদ্য ভেজাল। কিডনি এর সমস্যা দেখা দিলে আমাদের খাদ্য অভ্যাস ও আমাদের জিবনযাপনে পরির্বতন আনতে হবে।

এই ব্লগের মাধ্যমে আমরা কি কি খাবারগুলা খাবো না এই নিয়ে আলচনা করবো।

লবনঃ লবণ বা সোডিয়াম একজন কিডনি রোগীর নিয়ন্ত্রন করা অনেক বেশি জরুরি। এই রোগীর ক্ষেত্রে তার রক্তচাপ,তার শরিরে পানির পরিমান ,সোডিয়াম এর মাত্রা উপর তার লবন খাওয়া নির্ভর করে। কাচা লবন খাওয়া বাদ দিতে হবে। আর অতিরিক্ত সোডিয়াম আছে এমন খাবার বাদ দিতে হবে যেমনঃ চানাচুর,আচার,পাপড় ইত্যাদি 

আমিষ: যে সব খাবারে আমিষ আছে ওই সব খাবার যেমনঃ মাছ,দুধ,ডিম,ইত্যাদি এই খাবার গুলা সীমিত পরিমান মতো খেতে হবে।

সবজিঃ রোগির সবজি খাওয়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে যাতে কচু,মুলা,গাজর,শিমের বিচি,কাঠালের বিচি,ফুলকফি,পালংশাক ইত্যাদি গুলা না থাকে কারন এই গুলা কিডনি রোগীর খাওয়া ঠিক হবে না।

পটাসিয়ামযুক্ত ফলঃ যেসব ফলে পটাসিয়াম এর পরিমান বেশি থাকে যেমনঃ ডাব,কলা আঙ্গুর ইত্যাদি। এই সব ফলে বেশি পরিমানে পটাসিয়াম থাকে যার কারনে একজন কিডনি রোগীর খাওয়া ঠিক হবে না।

তরল  জাতীয় খাবারঃ তরল জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে রোগীদের বিশেয় সতর্ক থাকতে হয়। তরল খাবার এর মধ্যে পরে যেমনঃ চা , দুধ , ইত্যাদি। তরল খাবার একজন রোগী কতটুকু খাবে তা অনেকটাই তার অবস্থার উপর নির্ভর করছে।রোগীর দুধ খাওয়ার জন্য জালানো দুধ কখনো বেশি গাঢ় হবে না । আমরা দেখি যে এই রোগ হলে বেশি বেশি পানি পান করে - এটা আমাদের ভুল।


আমরা এই ব্লগের মাধ্যমে জানাতে চেয়েছি , কি ভাবে আপনি আপনার কিডনিকে  সুরক্ষা রাখতে কি খাবার খাবেন না। আপনারা এই উপরে দেওয়া নির্দেশনা মতো খাবারের তালিকা করলে কিডনি রোগটা অনেকটা নিয়ন্ত্রণ করা পারবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url